ভালবাসার কবিতা

স্বপন রায়


১.

নিচুপৌষে এই ওই মস্করাও কি স্বভাব চিনেমাটির হাসি মাখে ঢেলে দেয়

২.
কিছু নয় আবার জুতোর ফিতে বাঁধার চেয়েও বিরক্তিকর কিছু সকালে হয়,বিকেলে ফুরন্ত মাঠ যা,পরে যাঃ অব্দিও
৩.
দূরে পরবর্তী দূরে সুইচের দিকে এগোন হাতগুলো ফেরায় ফেরায় চূয়া
৪.
ফেরামাত্র রং জমবে দুধ পড়বে বাঁট থেকে ফোঁটাও ফুটবে দেখো
৫.
যে কথা আমায় যে কথা আমি কাউকে আর যেভাবেই হোক ছুঁয়ে মুছে গেছে রামধনু
৬.
বাড়ি ফেরার কথায় বাড়িও আনমনা

৭.
ফিরেই হাত রখা মাশরুমিং রুবি মনে পড়ে গোল গোওওওল কিনা মনে পড়ছে না
৮.
কলঙ্ক চাঁদে আছে,বারপোস্টে সামান্য,যাবেই তো বিরল চিতাটির থ্রু #চিরতে চিরতে মেঘ কালো আঁধার কালো আর..

৯.
বিদ্যুৎ লেখা হল লেখা ওই সুতো সেলাই চলছে আকাশের
১০.
শেষের সেদিন জেনেও টিকিট টিকিটে পেস্তার রং টিকিটে পশমভায়ো আলো
১১.
একটু কষ্ট জমে আছে,বাকিটা হাসি,পুরো তো কিছুই নয় বৃষ্টি পড়লেও নয়
১২.
জল কিছুতেই আর জলে পড়বে না শুধু মহিলারা মেয়ে হয় পড়তে পড়তে
১৩.
নদির মত নয় নদিই আমি তো মীণ নই,সাঁতার কাটিনি
১৪.
হেলান শুধু ফেরতের বা গান শোনাবার যত ভ’রে আসে ভ’রে চলে যায়
১৫.
এলেনা মাছ খুলে নদি কিন্তু আসছে
১৬.
আলো কিন্তু আলোর পরেও নাউপমায় ফেরারী
কে যেন গালে হাত দেয়া মার্ক্সবাদীও
১৭.
বিছানা থেকে দেখা শরৎকাল এলো
শাদা হলাম না,কিছু ফিকিরি রক্ত রয়ে গেছে
১৮.
হয় এরকমই
এখানে এলো চলে গেল এখান থেকেই
১৯.
নদি ডাকছে
নাভি নাভি
২০.
হাসছিল নিস্তল হাসছিল অপরিমেয়
যে আমি মাংসের আলগোছে হাই তোলা বৃষ্টির ভাপ দেখিনি আগে অবাক তখন
২১.
জ্বর এলে অসাধারণ মনে হয়
জ্বর না এলে সাধারণ এই আমি
২২.
মর্গে জোছনা ঢোকে বেরিয়ে যায়
শহুরে হয়ে ওঠার প্রথম সিঁড়িতে আর কেউ নেই
২৩.
দারুরুরু
মেয়েরা থাকলে রু রু ‘দা’ তো কেউ না কেউ বলবেই
২৪.
কবে তুমি একবার বা আমি একদিন পাখি উড়ে যাওয়ার পরে
ধর্মনিরপেক্ষ হয়ে পড়তাম শুধু পড়তাম
২৫.
একটা ঝড় প্রযত্নে অলকদাম আর খাতার নাম বঙ্গলিপি
আমার এতটা হল তোমার?
২৬.
কখন যে ট্রাকের পাল্লাখোলা শ্রাবণ এসে গেল
আমার শাস্ত্র হল না আমার শান্ত হল না
২৭.
আর যা আছে তাতে জল মেশায় না ধিকি ধিকি প্রজাপতি মেশায়
রিয়া
২৮.
নাকি হয়েই ছিল ধারাবাহিক উপন্যাসের শেষ পাতায় রাখা মামুলি চমক
ওই রিয়া
২৯.
রাস্তার ওইদিকে একটু ভাববে
হঠাৎই মেঘের টগর ছুঁয়ে উদাসী না তোমার
৩০.
শান্ত আঙুল বোতাম খুলবে রেনকোটের
এই রচনাটা লিখতে গিয়ে বর্ষাকাল নিয়ে লেখা হল না