জিরো পয়েন্ট

বেবী সাউ

এই সকাল ভালো লাগছে না, প্রভু।
এই কফ, থুতু শরীর ভালো লাগছে না।
সারাঘরে এত রুটি গড়া থাকে, এত সব্জীর টুকরো ছড়ানো থাকে… এসবে আমার হাড়গোড় গুঁড়িয়ে যাচ্ছে। শ্বেত কণিকা হারিয়ে যাচ্ছে।
উচুঁ বঁটি তাকিয়ে আছে ... ছুরি তাকিয়ে আছে
আর বল নিয়ে ছুটছে দুখী মায়ের হাতদুটি। বাবা রেফারি হয়ে হুইসিল ফুঁকছে,ওদিকে ভ্রমন বাস নিয়ে দাঁড়িয়ে আছে। রোজ এই অস্থিরতা ভাল্লাগেনা । এই ভ্রমণ ভাল্লাগেনা। এই যুদ্ধ ক্ষেত্র থেকে আমায় বাদ দাও, প্রভু! এ গোলকিপারের কাজ কত করি দিন. দিন. ! আমায় কাঠ বানিয়ে তোল ; কাঠের বেঞ্চ বানিয়ে তোল --- হাতলহীন চেয়ার। শকুনের চোখ নিয়ে কাপের দিকে তাকিয়ে ঝিমোতে চাই! দৃশ্যমান শেখাও প্রভু! গ্যালারি জুড়ে ছড়িয়ে দাও। অসংখ্য মরা গরু আমার শরীরের পেরেক কূপে গন্ধ ছড়াক আর আমি মাংসে জেগে উঠি, জন্মে জেগে উঠি।
জৈষ্ঠ্য পূর্ণিমার আগে,
এই টিমওয়ার্ক ছেড়ে, দৃশ্যমান রেটিনা ছেড়ে
আমায় গমক্ষেতে নিয়ে চল প্রভু!
             আখক্ষেতে নিয়ে চলো ...