সুবর্ণরেখা সব জানে

চিত্রালী ভট্টাচার্য্য

কেউ জানত না কথাটা। কথাটা না বলে দুঃখটা বলাই ভাল। কেউ জানত না। আমি একা একাই যুদ্ধ করতাম তার সঙ্গে। গোপনে। এই অবেলায় নদীর ধারের পাথরটায় বসে সেরকম একটা যুদ্ধ করছিলাম। হঠাৎ দেখলাম জলে ভেসে আসছে কিছু কচুরিপানা। কচুরিপানার মাথায় বেগনি রঙের একটা ফুল। একা। সে ফুলটার সঙ্গে নিজের একাকীত্বকে এক করে কথা শুরু করলাম। বললাম – একটুও ভাল নেই আমি। কি একটা ব্যথা আমায় বড্ড কষ্ট দিচ্ছে। শুনে ফুল কোন কথা বলল না শুধু দুলতে দুলতে এগিয়ে এলো কাছে। কচুরিপানায় গেঁথে ওরও তো তখন বিড়ম্বনার শেষ নেই। কাছে আসতেই দেখি ওর মাথার ওপর আটকে আছে এক টুকরো কাগজ। খবরের কাগজের টুকরোই হবে হয়ত। পালকের মতো দোল খাচ্ছে হাওয়ায়। কৌতুহলবশত তুলে নিলাম। ছাপার অক্ষরের যে কটা শব্দ পড়া যাচ্ছে তাতে চোখ রেখে চমকে উঠলাম – লেখা আছে – জলের ভেতর গাঁথা/ তোমার আমার ব্যথা।
আমি ঝুঁকে জলের দিকে তাকালাম। তাহলে কি সুবর্ণরেখা......!