স্বগতোক্তিপ্রায়

সৈয়দ কওসর জামাল

৫৫
সবকিছু হিসেব রাখার মতো বাঁচিনি কখনও, রাখিনি কোনো ঋণ
পিছনে তাকানোর মতো কোনো অপরাধবোধ নেই, হারাইনি কিছু
হঠযোগ করা কৌপিনসাধুর মতো স্থির আমি জল ও ভূমির ওপরে
আমার নশ্বর আত্মার রঙ সূর্যের লাল আভা থে্কে ক্রমশ গৈরিক
এত যে ভিজেছি শ্রাবণে, তোমার রাগিনী থেকে চুরি করিনি মল্লার
একে একে ছেড়ে গেছে ব্যক্তিগত জ্যোৎস্না ও রক্তের পরিসর
কবিতা লিখতে গিয়ে লিখে ফেলি নিজেকে এমন চক্ষুলজ্জাহীন
এই জীবনের মানচিত্রে বসিয়েছি রক্তমাংসের ক্ষত, পোড়া দাগ
অথচ স্বপ্নে পাওয়া কিছু ব্যাকরণবিধি আমাকে স্বতঃপ্রবাহিত রাখে
না হলে জীবন স্থির হয়ে যেত মিলিয়ে যেতে পারত বিন্দুর মতো
কৃষ্ণগহ্বরের তীব্র ঘূর্ণি টেনে নিয়ে যেতে পারত আপাত গভীরে
মৃত্যু কি বহুরৈখিক, সন্ধ্যার পাখির মতো স্পষ্টতই সরলরেখাগামী
বৃত্ত ভেঙেছে আরো অনেক বৃত্ত ক্রমাগত ছড়িয়ে পড়ছে তীরমুখী
যে লক্ষ করে, তার ক্লান্তি বাড়ে, নিদ্রাকে নিয়তির মতো মনে হয়...

৫৬
উপকূল বরাবর দীর্ঘ পথভ্রমণ শেষে একদা থমকে দাঁড়াতে হয়
একদিকে অতলান্ত সমুদ্রের উচ্ছ্বাসসিক্ত ক্রীড়ার দুরন্ত হাতছানি
অন্যদিকে পরাহত নাবিকের শ্রান্ত ঘরে ফেরা দুঃস্মৃতি নিদ্রায়
হে ডুবে থাকা ভেসে ওঠা ত্রস্ত জীবন, বলো কোন দিকে যাবে
কোথাও যায়নি যারা দেখেছি তাদের আলোড়নহীন বেঁচে থাকা
যতটা বিহ্বল চিত্তবিভ্রমে ততটা শব্দহীন অনস্তিত্বে স্বপ্নপীড়ায়
অনড় যুক্তি আর আকাঙ্ক্ষার ছিটেফোঁটা না থাকা অনির্দেশে
অসহায়তা প্রশ্রয় পেতে চায় মৌনের ধৈর্যশীল মূর্তির স্বমহিমায়
সমুদ্রগর্ভের সংসারে জলপরি মৎস্যকন্যাদের অদৃশ্য সংকেত
আমি উপেক্ষা করিনি কোনোদিন, বরুণদেব, জানেন সেসব
তবু মনুষ্যসংসারের রহস্যকিনারায় দাঁড়িয়ে আমি বিহ্বল, একা
চোখের সামনে অযুত জীবন বসন্তঋতুতে প্রণোদিত, গতিশীল
যত একা হই, ততই ধ্বনিময় পরিপার্শ্বে জেগেছে অনুভূতিদেশ
জীবনের মধ্যে স্বপ্ন, স্বপ্নের মধ্যে সৌন্দর্য, আমার আশ্রয় চায়...

৫৭
অলৌকিক স্বপ্নে পাওয়া সৌন্দর্য সত্য নয়, মিথ্যা স্বপ্নে পাওয়া অমরত্ব
আমাদের জিভের লালায় পরীক্ষিত ভাইরাস সত্য, সত্য কীটদষ্ট শ্বাস
জিহ্বাও নিঃসাড়, নাসারন্ধ্র অনুতাপহীন, হাত থেকে খুনের রক্ত ধুই
বারবার ধুয়ে ক্ষয়ে যায় ত্বক তবুও রক্তচিহ্ন আরো স্পষ্ট আরো লাল
কী করে কাটবে এই নশ্বরতাদোষ, ভেবে আমি তবে লেডি ম্যাকবেথ
মৃত্যু নিঃশব্দে আমাদের মরবাগানে এসে ঘোরে, ঊঁকি মারে জানলায়
ঈশ্বরহীন দেশে মৃত্যুকে শনাক্ত করি শয়তানজ্ঞানে, কররেখা সরীসৃপ
তাদের সাপুড়েভীতি দুর্বলতা জেনে আমি কি সাপুড়ের বাঁশি হব তবে
সত্য ইভের আপেল, সত্য ক্লিয়োপেট্রা, দেহতটজুড়ে লিবিডোর ঢেউ
মিথ্যা এক দৈব উট, দেখি কুঁজের মধ্যে মরুবিজয়ের স্বপ্ন ফেরি করে
প্রেমের নগ্ন ইশারা মিথ্যা, মায়াবী প্রেমের হাটে মাংসের বিকিকিনি
সত্য এই গোপন অসুখ, চিকিৎসাশাস্ত্রের গায়ে ভূতের অনিবার্য ঢিল
প্রবেশপ্রস্থানের সব পথ বন্ধ করে একা, বিন্দুবিসর্গ জানতে চাই না
বহির্বিশ্ব আয়নায়, আয়না ভার্চ্যুয়াল, আমাকে দিয়েছে এই মনস্তত্ত্বপাঠ...