একগুচ্ছ কবিতা

জুয়েল মাজহার

বিকেলের লাল বাকবাকুম
১.
দ্যাখো, চড়ুইপাতা দিনে
পাল উড়ছে মফস্বলি নদীতে অদ্ভুত

অপার বাণিজ্যবায়ু
লবস্টার ডালে ঝুলমান

কার্পাসের বনে এসে উঁকি মারে পৃথুল শেয়ালি!


২.
না-দেখা পাহাড়ে ওই জ্বলে হাহ-হা, জ্বলে চৈত্রদিন

ওঁ অনেক অবিমৃষ্যকারিতার হাহ-হা
ওঁ অনেক লাল ঝুঁটির হাহ-হা
ওঁ অনেক লাল মোরগের হাহ-হা
ওঁ অনেক ডাগর চোখের হাহ-হা
ওঁ কুঁকড়োর অস্থির প্রত্যঙ্গ সটান --------হাহ-হা

রতিকলস্বরা মুরগিদিগের দিকেই তারা ক্রমধাবনশীল---- হাহ-হা।
আর, রতিপটু মুরগিদের ভণিতাময় দৌড়ে-পালানোর হাহ-হা



ধন্যবাদ হে, মোরগেরা
বলি হে, তোমরা যারা তালা খুলছো দিবসের
কুক্কুরুক্কু -------হাহ-হা

তোমরা মুরগিদের পালকে ঢাকা দরজার তালা খুলছো----- হাহ-হা

ধন্যবাদ, মুরগিদের অনাবিল সম্মতির হাহ-হা
ওঁ দেখতে পাচ্ছি লালঝুঁটিসমেত তোমাদের
টগবগে মখমল-ঘাড়সমেত
তোমাদের পরমনীল অর্গ্যাজম। আর,
ওঁ পরমনীল শীৎকার---------রাত্রে


৫.
এই বেলা জ্বলো তবে
আরও আরও ভাতের মতোন
তব বুদ্বুদের উচ্চকিত ডিম বিলি করো তবে

৬.
নীল
নীলানীল
আনীল মুদ্রাদোষাকুল শৃগালি;
তাকে স্ফীত লাঙ্গুলসমেত
একটিবার ডাকো তবে


আমরা সবাই সব
মউলোভী ধ্যানস্থ ত্র্যম্বক

আমরা সবাই তব
ডাগর জঘন ভিক্ষা করি

পিছল টানেল ধরে নেমে যেতে যেতে
রতি-শিলাজতু পেয়ে যাই। পেলেই কুড়াই
----তোমার কুহরে মনে মনে

৮.
আমরা ডুবিয়ে দিয়ে তরী
হরিকে দূরেতে দিই ঠেলে
পরিকে বসাই টেনে কোলে

পরির প্রকাণ্ড কোল ভরে
বিকেলের লাল বাকবাকুম


হাহা-জ্বলছি এখন আমরা নিরাগুন
কাছিম খোলের মতো গুহামুখ থেকে
উদগত ফেনায়, বুদ্বুদে
জ্বলছি আমরা নিরাগুন

মাকড়জালের মতো জালে
বিকেলের লাল বাকবাকুম

কার্পাসের বন থেকে উঁকি আর মেরো না শেয়ালি !



নৃমুণ্ডুশিকারিদের খোয়াব
আমি একটা একলা....
আমার স্বপ্নকে আমি চোখ মেলে দেখি

সে আইসে
কাটামুণ্ড থালায় সাজিয়ে

আর সে-খোয়াব --আমি শঙ্কা করি --আসবে প্রতিরাতে;
ভোর অব্দি একে আমি পারবো কি পারবো দমাতে ?

আবছা চেহারা নিয়ে কেউ এসে করে ফিসফিস;
একটি নয় দুই মুণ্ড নিয়ে
আসিবে সে, আসিবে আলবত

একটি সচুল আর অন্য কাটা-শির দ্রুত টাকের দখলে

এটি যে তোমার তুমি জেনো সুনিশ্চিত

সবচেয়ে মনপসন্দ্ একে পেয়ে তারা খুশি হবে
মোরগ ডাকবে আর পাখিসব গাইবে যখন
তারও ঢের, ঢের আগে পাচকে বলবে ডেকে তারা :
একে নিয়ে ডুবো তেলে ভাজো
তারপর ভোজ হবে ; জিভে জিভে চেটে নেবো স্বাদ।’’

বিজন বিরল স্থান-------আদতে গ্যারাজ। তবে পরিত্যক্ত।
ভয়াকুল প্রাণ লয়ে সেই দিকে দৌড়ে চলি আমি

দেখবার-কথা-ছিল-বহু-আগে এমন খোয়াবে
চোখ মেলে নিজের সুরত আজ আমি দেখলাম