ম্যাড মঙ্ক

শুভ আঢ্য


এই ধর্ম মিথ্যা, এই যীশুকে স্মরণ করে প্রতিটা
শুক্রবারে আমি তোমাদের মেয়েদের ভেতরেই
পুঁতে দিই যীশুকে, তারা শীৎকার করে ওঠে, বলো,
তোমাদের ধর্মে শীৎকারের উপযোগী শব্দ কি আছে?
বলো, তোমরা কাম'কে দেখেছ? সেই পাহাড়ের ধারে
দাড়িমুখ একজন সন্ন্যাসীর ভেতর কামের বাড়ি, তার
আলো দেখেছ কি দ্রাক্ষালতার মতো তোমাদেরও
ঘিরে ফেলেছে আলেকজান্দ্রা, সুতরাং তোমাদের বাস
সুবাস আর সুভাষিত কথা মিথ্যা, এই দেখো, এই চোখ
আমার নয়, এই দৃষ্টির ভেতর যে সরোবর সেখানে
তোমাদের সন্ততি ভাসে, তা'ও কি আমার, অথচ আমারও
যে নয় তা'ও কি হলফ করে বলে তুমি উঠবে? ওহ যীশু
তুমি সত্য, কিন্তু তোমার আধারে রচে ওঠা যাবতীয়
বাণী, মোম আর প্রার্থনাসঙ্গীত যা বেজে ওঠে
তার নামই তো ধর্ম, তার নামেই তো প্রতিটা শুক্রবার
স্খলন, তার নামেই তো পাপবোধ, আর দূরে যাওয়া
কাম থেকে, শরীর থেকে, নিরবধি তোমার থেকেই

সুতরাং রাসপুতিনের কথা শোনো, ওই গীর্জার ঘণ্টার
ভেতর অনুরণণ, স্বীকার্য, ওই কাম স্বীকার্য, ওই মিথ্যাকেও
স্বীকার করো হে নারী, খুঁজে তোলো উপযোগী শব্দ তাদের



এসো, আমাদের ভেতর মোম জ্বলুক
এসো, তোমার ভেতর আমাদের কি নিদারুণ জ্বলন্ত
রাশিয়া দেখি... এসো নিরোধক, অধর্মের প্রাকারে
আমাদের দিন গুজরান হোক, আর লম্পট শুধুমাত্র
বিশেষণ বই কিছু তো নয়, এসো আমাদের ভাষার ভেতর
রাশিয়ার ভবিষ্যৎ নিয়ে আমরাই বেড়ে উঠি - একথা বলছি
আমি উন্মাদ সন্ন্যাসী এক মাথায় আগুন, আমার হাড়
জ্বলে ওঠে, আমার পাঁজরে কাল, আমার পাঁজরে
ঘোড়ার গতি, আমি বেচেছি তাকে, তোমাকেও বেচবো
যেন তোমার ভেতর এক বাজার, সেখানে ক্রেতাসাধারণ
আর মুদ্রা, তার দোষ, গুণিতকে বাড়ছে, দেখো...

তাহার ভেতর অন্ধকার, তাহার ভেতর মিথ্যে, তাহার ভেতর
কি অপরূপ সব সৈন্যরা আমাকে হত্যায় উদ্যত, তাদের
বন্দুক, তাদের ঘৃণা, আর সেইসব মেয়েদের বিবস কাহিনী
আমি মাথা পাতি, আমার বুকে গেঁথে তুমি দাও দুঃখ
বিশেষণ লম্পট, তবুও সন্ন্যাসী আমি কামকে ছেড়েছি
উত্তুঙ্গ মুহুর্তে আমি ছেড়ে গেছি তোমাকেও, ভাবো
মাথায় আগুন, পাঁজরে কাল আমার, ভাবো
এ অন্ধকারে অধর্মের প্রতিভূ আমি, রাসপুতিন
আমাকে মারো, মোম তোমার জ্বলুক নিদারুণ



একুশ দিন, আমাদের মেয়াদ, তোমার স্মৃতি
আমার ভেতর চারিয়ে যাওয়া তোমার আগাছা
একুশ দিনের পর নিড়ানো নতুন জঙ্গল জন্মাবে -
একথা যীশু জানতেন, জানতেন তিনি তাঁর নৈশভোজে
তোমাদের কেউ তাঁকে... যেমন জানি আমিও,
সায়ানাইডের স্বাদ, আর মৌলিক ধাতু সে তো
আমার ভেতর বেড়ে ওঠে আর অজস্র একুশ দিনের
মাথায় আমার মেয়াদ শেষ করেছি নিজেই আমি

তোমাদের পরিবার আছে, তন্ত্রের ওপারে তার রসায়ন
তার ছাঁদের ওপারে গোলগাল মুখ, মা-বাবা ডাক,
এমনকী ইনসেস্ট আছে, আছে মূর্খ সন্ন্যাসীর আর্তনাদ

আমার তো শুধুই সত্যের দিকে চেয়ে থাকা
তোমাদের ঘিরে শুধুই ধর্মের গ্লানিবোধ খোঁজা, একুশ
দিনের শেষে অবিরাম সত্যের দিকে চারিয়ে যাওয়া
এক বৃহৎ লিঙ্গ, এই চরাচর ঘিরে, শুধুই কাম, কেবল
যীশু জানতেন না, এক ঘোড়াচোর কখনও গতিময় হবে
শুধুই সত্যের বিপরীতে এঁকে যাবে গতি তার, ত্বরণ
সহগে ধরা যাকে যাবে না, শুধু চরিত্র হয়ে ঢুকে যাবে
নতুন জঙ্গলে, নতুন কুঠার তার ঝিকিয়ে উঠবে