ধন্যবাদ,স্নিজা দাশগুপ্ত

অরুণাভ রাহারায়

অরুণাভ রাহারায়

1
আমার জন্মদিনে, স্নিজা-কে

কবিতা ফুরিয়ে গেছে! তবু,
তোমার গানের খাতা থেকে
লেখারা আবার আজ উড়ে-ঘুরে এলো

লেখাদের জলে যেতে বলি...
বলি যে, জলের থেকে ভাল
আর নেই কিছু, এই সকালবেলায়

আজ থেকে স্নিজা নামে ডাকবো তোমাকে।
আমার লেখার গায়ে ওড়াব আদুরী...

শ্রাবণে আঘাত আসে আমেরিকা থেকে।
বরং তোমার সঙ্গে মনে মনে জোড়াসাঁকো ঘুরি...



2
ঋণ

তোমাকে দেখিয়াছি অফিস প্রাঙ্গণে
সাজানো চোখ-দুটি যেন বিদেশ!
আমারই মন তুমি দু'হাতে নিয়ে গেছ
কথারা উড়ে যায় অনিঃশেষ

তোমার পরনে যে গোলাপি রোদ ছিল
বাঁ-হাতে ট্যাটু ছিল নীলাম্বর
গাছের ভাঙা ডালে বসেছে ভাঙা চাঁদ
ডুবেছি রাতঘুমে আড়ম্বর

সারাটা বেলা জুড়ে বালিতে দাঁড়িয়েছ
শান্ত দুটি-পায়ে আসছে ঢেউ
আমার লেখা আসে, কবিতা আসে যত
দু'হাতে লিখে যাই, জানে না কেউ

তোমারই স্মৃতি আজ ছড়িয়ে পড়ে আছে
শোনাও মনোমেঘ গান শোনাও
করুণাময়ী ধরে আবার হেঁটে যাব
গানের তিন-কলি ছত্র গাও...

আকাশে তারা ফোটে বছর ঘুরে যায়
এই যে চলে আসে জন্মদিন
আমরা থেকে যাব কব্যে-কবিতায়
আমার বেড়ে যাবে অনেক ঋণ

3
আশ্চর্য
[ঋণ: সুভাষ মুখোপাধ্যায়ের 'সুন্দর' কবিতা]

যখন তোমাকে আমি অফিসে প্রথম দেখলাম

তখনও নয়

যখন আমার ডাকে গান গাইতে এলে সল্টলেকে
রবি ঠকুরের গানে ভরে উঠল ঘর

তখনও নয়

যখন আসর শেষে আমরা একত্রে হাঁটলাম
তোমার স্নিগ্ধ চুলে হাওয়া উড়ল...

তখনও নয়

যখন বন্ধুরা ঠাট্টা করল, আমাকে
খাদের কিনার থেকে ছুড়ে ফেলে দিল--

ঝরাপাতা হয়ে আমি ভাসতে ভাসতে
মিশলাম ডুয়ার্সের পাহাড়ি নদীতে

তখনও নয়

যখন বাড়িতে পৌঁছে, ফেরার খবর দিলে ফোনে--
তখনই
আশ্চর্য ভাবে আমি, তোমার প্রেমে পড়লাম!


4
ধন্যবাদ, স্নিজা দাশগুপ্ত

তোমার ছবি দেখে কবিতা লিখি আমি
কেবল বেড়ে যায় অন্ধঋণ
তোমার ছায়া হাঁটে মায়াবী মধুরাতে
আমাকে কাছে টানে অন্তহীন

লেখার অজুহাতে আলেয়া জোড়াসাঁকো
বেড়াতে যাও তুমি দার্জিলিং
তোমার মৃদু গানে পাহাড়ি পথে পথে
লেখারা খুঁজে পায় ছাদ-সিলিং

বাগানে রোদ নামে খাদের সমতারা
শুধুই ছেয়ে ফেলে শীর্ষদেশ
ঘাসের মুখ থেকে আকাশে মুখ তোলো
মাতাল হয়ে থাকে চায়ের দেশ

সে-দেশে আমি যাব তোমার গানে গানে...
একাই ঘুরিফিরি হে প্রান্তিক
কুয়াশা জমে থাকে, মুঠোয় ভেঙে ভেঙে
তোমাকে ছুঁয়ে নেব বরং ঠিক!


5
আবার ধন্যবাদ, স্নিজা দাশগুপ্ত

তোমার দু'চোখে যে জ্যোৎস্নারাত ছিল
চশমা পরে কেন, অবুঝ মন?
তোমার দু'চোখেই রয়েছে চোরাবালি
হৃদয় কেড়ে নেওয়া সংক্রমণ

তোমার গ্রিলে আজ উঠেছে হিজিবিজি
সাউথসিটি নাকি থমকে যায়!
হাওয়ার ছলেবলে আমার কবিতারা
তবুও জোড়াসাঁকো সাঁতরে যায়...

ওই তো দমদমে বিমান ছুটে গেল
তোমার অফিস কি চাঁদনিচক?
তোমার স্বরে আছে ইশারা যতখানি...
নরম গান ভুলে শোনাও রক

এই যে আমি আছি তোমার ছাদে ছাদে
আকাশ জ্বেলে দিল আবছা রোদ
নিজের ঘরে তুমি একাই গান করো
আমিও মেপে দেখি ভুল পারদ!