কালো বরফের পিস্তল

রুহুল মাহফুজ জয়

কালো বরফের পিস্তল
৪.
মৃত্যু খুব ভালো ছেলে, আজরাইল ফেরেশতার ভাষা ছাড়া কিছু শেখেনি।
মৃত্যুকে সাঁতার শেখানো যেতে পারে, মৃত্যুকে সাঁতার শেখালে আয়লানরা বেঁচে যায়। আদর করে কাছে ডেকে মৃত্যুকে ভিডিওগেম খেলা শেখাতে পারো, গালে হাত বুলিয়ে বলতে পারো — গুলি বা পদলেহন- কোন হত্যাই জায়েজ না। মৃত্যুকে দুধে-ভাতে পালক নিয়ে বড় করতে করতে বলো — বেঁচে থাক বাবা! তুই মরে গেলে ক্ষমতা নারাজ হবেন!



কালো বরফের পিস্তল
৫.
ওলান টানছে ছলকে পড়ছে দুধের পৃথিবী
আঙুলের প্রতিবেশে থকথকে গাভীসুখ
দুগ্ধপ্রতিমার ’দ’ হাঁটু
আধচিবানো খড়ের ভঙ্গিমায় নড়ে ওঠে

এই দৃশ্যের প্রিজমে
মুগ্ধ হতে পারছে না ষাঁড়ের অহম

চিরলেন্সের ভিতরে দেখা যায় এক নারীহাত
শুধু দুধের পৃথিবী ধরে টানছে ওলান ধরে —
হা-মুখ হয়ে আছে অদূরে দাঁড়ানো যাজক হৃদয়


কালো বরফের পিস্তল
৭.
ঝরা পাতার শব্দ, আমার কাঁধে শুয়ে থাকো —
ঝুনঝুনি বাজিয়ে শিশুর মতন
বোশেখি মেলায় যাও
ঘুড়ি ওড়াও খেলো কাটাকুটি
সিনেমা দেখতে যাও
শিঁস দাও তরুণীর দিকে
ছুঁড়ে মারো উড়ন্ত চুমু
নায়িকার কান্নার সিনে চোখ ভেজাও
ব্লু-ফিল্ম মাস্টারবেশনে সঙ্গে থাকো
বউ-পোলাপানের
যত্ন-অযত্ন খেয়াল রাখো



ঝরা পাতার শব্দ গো, আমৃত্যু খাও আমার আয়ু
আমিও চিনে রাখি হাওয়ামৃত্যুর মৃদুশব্দ