এই বৈশাখ

কুশল ইশতিয়াক

এই বৈশাখ ৭

খালি গায় কবি গেছে নক্ষত্রের দিকে

ওঠো বন্ধু, ওইপাশে শালবন এখন
ঝিরঝির, শনশন
চান্দের রাইতে যে আসর হইছে আয়োজন

চক্ষে তোমার সুরমা, চক্ষুর ভিতরে
কার লাইগ্যা আছে পুঁথিপাঠ

হাওয়ামন
দিনরাত

পথের ওপর কেন রইলা ঘুমায়ে
ছোট কন্যা বাড়ায়ে রইছে হাত

ও বন্ধু, দু:খ কতো নিয়া আজ অন্ধ হইলা তুমি
লন্ঠন হাতে নক্ষত্র হাতড়াই বেড়াইতেছো বুঝি

বুদ্ধের রাইতে তার মতো
কোন গহীনে যাও একা
আরেকটু পর ফুরায়ে যাবে গো
চাঁদ

হাওয়ামন
দিনরাত
নগ্ন পায় আইসা বসো পিঁড়িতে
কন্যা তোমার বাড়ায়ে রইছে হাত


এই বৈশাখ ১৫

চান্দের দেশ হইতে আসিলো দরবেশ
মলিন আলখাল্লা তার গায়
মরুর পাহাড়ে সূর্য লেগে আছে
ধূলির পাহারায়

নূরানী লাঠির ছায়া দীর্ঘ হলে
এক তামার কুঠুরি সূর্যরে প্রদক্ষিণ করে

ওরে ও বনের পাখি— ও আলখাল্লার পাখি
কোন পথ তারে চেনাও তুমি ?
পথের মাঝে কে যেন বিছায়ে রাখছে কাঁটা

দুপুর না ফুরালে
মরিচিকা না ফুরায়
দয়িত তখনও ফেরে নাই ঘরে
এর মাঝে আচানক উঠানে আসিলা

কার খবর তুমি আনিলা এতদিন পরে
সূর্যরে আপন করে, জগত করিয়া পর
চোখের জ্যোতিতে কোন ফুল ফোটে
মাটির পিঞ্জিরায় কার ছবি তোমার?


নববর্ষ
এমন রোদ পুরোনো। এই বিকাল দীর্ঘ।
এই সমস্ত সোনালী। ডুগডুগি বাজতেছে মেলায়।
শৈশবের দিকে যাবা?

মেঘ দৌড়াইতেছে
মেঘ দৌড়াইতেছে