ওম

ফারাহ্ সাঈদ

ওম

এ পথে ডুবিয়ে সন্ধ্যা
কতকাল এই আমি হারিয়েছি ফেলেছি তোমার মুখ।
সলতে হাতে ফিরেছে অন্যকেউ ,
এই গৃহ , এই মোম
কোথাও কী আর আগুন পোহাতে বসে ?
অগোচরে শীতের নামে ওমের বদনাম
তুমি তবে সমতান ছায়ার ছায়া
ত্যাগ ভিন্ন ধ্যানের চিহৃ
দেয়ালিকায় কবে কার ওমের বদনাম

দেখা

কুপির আলোয়
কে কবে কণে দেখার ছলে
একটি মার্বেল চোখ রেখে গেছে

টবে বুনে নিলে গাছের আড়াল সে পেলেও
পরিচর্যা করি নি
না জল না যৌবন
পাতা ঝরা দিনের শেষে
শীত বয়সী কাঁথা
মেলে দেই নি কোনদিন
ছয়টি সঙ্গীত
এভাবেই ঋতুমাসের রাগ
নিজেকে বারণ করি
তবু দুরন্তপনায় হিম পড়ে

আমাদের বার্ষিক বৃষ্টিপাতে
কোন এক সবুজ মার্বেল
প্রতিবারই একটি দৃষ্টি উপহার দিয়ে যায়

হরপ্পা নগরি

কে কবে রেখে যায় বুদবুদ
হরপ্পা নগরির সমতলে
নি:সঙ্গ পেরেক ঠুকে জল
বেওয়ারিশ চোখের খাদে হিলিয়াম
বর্ণহীন স্তনের হেয়ালি রেখে
কী নামে ডাকলে তারে
রমণী বলে চিনবে লোকে!