শিল্পকলা একাডেমি

রাদ আহমদ

শিল্পকলা একাডেমি

শিল্পকলা একাডেমি কিভাবে বুঝাব আমি
বৃশ্চিকের দংশনে কত সরলতা

মলিন জামার রূপ সন্ধ্যাবেলা অপরূপ
তাকে কোনো মতে ঢেকে রাখা যায়

চারপাশে এলোমেলো প্লাস্টিকের চেয়ারে ফটো
পুরানো ফটোগ্রাফের গায়ে লাগা

ছোটো ছোটো মধুকণা - যারা বসন্তের ফণা
গায়ে মেখে রমনাতে ডুবে যায়

সেই রূপে ঘুরে ফিরে ফেরিওয়ালা টুকরিতে
নিয়ে আসি কাটা কাটা আমাকেই

এ ঢাকাতে আর কোনো কথা বলবার মত
স্থান কোনো বাকি নাই তাই

বেসদৃশ ফোয়ারা পাশে সুঁই সুতা নিয়ে এসে
সে আমাকে সিলাইয়ের কথা

ভাবল


সুর দিও না

হারমোনাইজেশনে দিও না সুর
যে লাল রঙে বিকাল খোপ খোপ জানালায়
চোখ টিপে চলে গিয়েছিল মিউজিক সিস্টেমে
শীতল রুপালি নবে অল্প অল্প শিক্ষা
ঝলকায় বলকায় নীরব দুপুরে সবাই

ঘুমিয়ে থাকা বেল গাছ বেলের উপরে
সাদা বিষ্ঠা বিষ্ঠা ইটের দেয়ালে
পাখি

সুর দিও না ঐ কণ্ঠ মিলায়ে সুরে সবকিছু
একা একা হয়ে যায় সন্ধ্যা আসে চলে
তোমার অন্তরঙ্গ বিদায় খানাও

বোঝা যাবেনা যাবেনা সুর
দিও না হারমোনাইজেশনে



দৈনন্দিন উপকরণগুলা

দৈনন্দিন উপকরণগুলা বন্দুক যেন
যত্ন করে দিনের শেষে একলা একা
তোমাকে তো না, চাইছি ঐ নোয়ানো মুখ
কাজ সাঙ্গ হলে আস্তে গুছিয়ে রাখা

কেউ আসলে তাকিয়ে নাই পিঠের পিছে থেকে
সামনে কোনও জ্বলতে থাকা বিড়াল চোখ
লোমের গায়ে স্ফুরণ ঘটা মৃদুমন্দ হাওয়া
সন্ধ্যাকালে করিডোরের নীলচে আলো

লকার খুলে ভিতরে দেখ যত্নে সাজানো
তোমার জড়ো করা অমোঘ লতাপাতা
ছোট পাথর তার উপরে প্রাচীন স্রোতে
মিশে গিয়েছে মৃত দিনের আলোক লতা

দাম করেছ আন্তর্জাত বাজারে তাকে
তুলে দিয়েছ - কিনল যারা তারাও একা একা
সন্ধ্যাকালে ক্যাফেতে বসে খবর দেখে
যুদ্ধে দেখে বাড়তে থাকা উপযোগিতা

বৃদ্ধি কর বাড়াও তুমি অনেক ঝংকারে
নৃত্যরতা মানুষী লাল ঝালর ওয়ালা
ঠমকে টানা চোখের কোণে ত্রিকোণ হাসি
সন্ধ্যাকালে বাগান জুরে হলুদ নীরবতা

ওখানে গাছ চৈত্র মাসে চেহারা খুলে
কাণ্ডে যার লেপটে থাকে অস্তিত্ব গুড়া
সেটাকে দেখ, এবার তুমি নোয়ানো মুখ
ওখানেতেই তোমার যত সঞ্চয় লেগে থাকা



ছোট কালো গুড়ামাছ

ওরা যেগুলা খায় সেগুলাতে সম্ভবত প্রচুর ভিটামিন এ
প্রস্তুত করা থাকে,পুরে দিয়ে দেওয়া থাকে

ছোট ছোট কালো গুড়ামাছ
তোমাকে সাজিয়ে একজন ব্যক্তি তোমাকে
ঘিরে ছয় সাতজন লক্ষ্যহীন মহিলা ও পুরুষ
উদ্দেশ্য-ত্যক্ত এই সকালে হাতিরবেলায়
পুলের উপরে সিমেন্ট-কালো গুড়ামাছ

মুকুটে শলাকা যেন
জুয়ারির হাতে তাস
টান টান দাঁড়িয়ে থাকা তিরতিরে বাতাসে কিছু

লক্ষ্যহীন মহিলা ও পুরুষ নিশ্চুপ
কালের ভিতরে কেমন গেঁথে গেল