ভাংচুরমাখা ভুলচুকগুলি

অনির্বাণ বটব্যাল

১.

ভুল নড়ে ওঠে শক্ত খোলসে । আতু আতু ওমে তা দিই -
ঈশ্বরীয় ডিম

শুধু ভাঙ্গার জন্যেই যত্ন- বহর

ভিতর থেকে ভাঙলে শুরু
বাইরে থেকে শেষ

২.

বাইরে বললেই তুমি আবার তুমুল সাজুগুজু । আয়না-লাজুক হও খুব । মুখোমুখি ভুল মাখো একা

এবং আয়না

নিজেকে চেনার, অথবা -
ভুলের প্রথম পাঠ । যা -
ভাঙলেই একাধিক মুখ

অথচ কোনোদিন
নিজস্ব ঘুম দেখেনি কেউ

৩.

ঘুম শুনে হাই তুললে । হাই হিল । ভুল একটি ষ্টেশনের নাম

ঘুম
বিশ্রামের আড়ালে লুকোনো আশ্রয়

ঘুমের ভিতরে জেগে থাকে যারা
ভুলতে চায় বিগত ভুলগুলি
ঘুমোতে যায় ঠাণ্ডায়

বরফ জমে ঘুম হয়ে গেলে
জেগে ওঠে ভাঙ্গার চিন্তা

তন্নতন্ন ভুল বেয়ে
নিচে নামে পাহাড়ি রাস্তাটি

৪.

রাস্তা ভাবলেই ফ্যাকাসে হও কেন? কোনো রাস্তাই আদপে বেওয়ারিস নয়। সত্যি কি রাস্তা হারায় কখনো ? রাস্তায় সত্যিরা হারায় হঠাৎ হঠাৎ ভুলের স্বভাবে। উড়তে থাকে পিনকোড হীন ...

ভুল রাস্তা
প্রতিটা রাস্তার একটা নাম আছে
প্রতিটা বাড়ীর একটা রাস্তা আছে
প্রত্যেক বাড়ীতে ভুলের নিজস্ব ঘর

প্রতিটা ঘরেই আকাশ ভেঙে পড়ার ভয়

আকাশের কোনো রাস্তা নেই
কিংবা রাস্তা ভুলের ভয়

আকাশ জুড়ে শুধুই চলাফেরা ......

৫.

চলতে ফিরতে এত ভাংচুরমার। তুমি ভয় পেয়ে সাহসী হয়ে গেলে আরো ! বরাভয়ে বাড়িয়ে দিচ্ছ গুচ্ছ গুচ্ছ ভুল , ভুলের তোড়া ... আর গন্ধে ম...ম ...
সোহাগ মাশুল
ভেঙে গেলে কি সব শেষ ?
ভুল’ত ভাঙ্গার পরেই ধরা পড়ে

অনুতপ্ত সরণী ফেরার রাস্তা হলে
চলে যাওয়া কি তার চেয়েও ..... !!!

সব খুইয়েই বোঝা যায়
চাওয়া পাওয়া বলে কিছু নেই,
শেষ বলে কিছু নেই।

এস ভুল এস ... তা দিই
ভালোবেসে আরো একবার ভাঙন দিই তোমায়

শুরু বলে ডাকি