জন্মাঞ্জলি : দ্বিভাষিক কবিতা

জুয়েল মাজহার

Birth Offerings

The night's forest bedimmed my father’s image.
And the face of my mom still comes
To visit the minarets of withered leaves.

[ Translated by the poet from Bangla ]


।। জন্মাঞ্জলি ।।

আমার বাবার ছবি মুছে দিল রাতের জঙ্গল;
আমার মায়ের মুখ এখনো বেড়াতে আসে
পাতাঝরা গাছের মিনারে
-------------------------------------------


Momento

1.

Let me see your eyes.
Only then I can bring you
The night's air and aroma.



2.

Where's the amazing cloud?
Where have you been so long
You who belong to a foreign land?

I am a soul in distress.
I assume the form of a cuckoo
Only to send out my tunes
Near your house secretly
At midday in the spring.

[ Translated from Bangla by the poet ]




অভিজ্ঞান

১.
চোখ দুটো দেখাও আমাকে। আমি
রাত্রির বাতাস, ঘ্রাণ
তবেই না বয়ে নিয়ে আসি


২.
কোথায় আশ্চর্য মেঘ?
কোথা গেলে ভিনদেশি?
আমি যে কাতর!

তোমার বাড়ির পাশে
দুপুরে কোকিল হয়ে
বসন্তে গোপনে এসে ডাকি


------------------------------------------------------


Beside An Anchor

Beside an anchor -- it seems-- you've cast your own
Into the loose afternoon of the West.
----The remotest one from the sun.


You were lonely and sad like bubbles.
Bubbles that rise from a sinking ship.


Now that the night is invisibly visible here!


[ Translated by the poet from Bengla ]


।। নোঙ্গরের পাশে ।।

নোঙ্গরের পাশে তুমি, মনে হলো, ফেলেছো নোঙ্গর
সূর্য থেকে দূরতম পশ্চিমের এলানো বিকেলে;


বিষণ্ন ও একা ছিলে। ডুবন্ত জাহাজ থেকে
জেগে ওঠা বুদ্বুদের মতো।


রাত্রি এখানে তবে, অগোচরে, হয়েছে গোচর!

--------------------------------------------------




Demon Of Winter

''For by thee I have run through a troop;
and by my God have I leaped over a wall
.''
- -Psalm 18: 29/ The Bible

And look, in Bhairab along the banks of the Meghna I grow peanuts.
And through the white sand I slowly run my hands
To gather tenderness of the spherical seeds!

From Kuliarchar to every nook and cranny I send
Fishes and their spawns as gifts;
I send them to many a towns and cities
---Cities that are lewd and lascivious.


In order to reach your high-walled cities
I have to trample down countless wild doves and pigeons.
Where -- even in this simmering heat--warmth of our handshakes
Is frigid like a slumbering, rusty cannon.


I dwell in a gloomy, grief-stricken, crumbling far-off mofussil
Where inside an old tattered tent
Love is encircled by the waves of death.

Going upstream along many a dead rivers
I sit to contemplate:
Across a vast expanse of desolate land-- full of memory's ashes--,
Beating huge war-drums,
From one winter to another,
I shall once again run after your cruel, merciless armies.


[ Translated from Bangla by the poet ]




শীতের দৈত্য

‘‘কেননা তোমার দ্বারা আমি সৈন্যদলের
বিরুদ্ধে দৌড়াই,
আমার ঈশ্বরের দ্বারা প্র্রাচীর উল্লঙ্ঘন করি
’’
---স্যামুয়েল ২২/বাইবেল


আর দ্যাখো, ভৈরবে মেঘনার তীরে আমি বাদাম ফলাই
আর, শাদা বালুর ভেতরে হাত গলিয়ে
ক্রম-বর্তুল বীজের স্নেহ কুড়িয়ে চলি—ধীরে।

কুলিয়ারচর থেকে মাছ আর
তাদের সম্ভাবনাময় তরুণ ডিমগুলিকে
উপহার হিসেবে পাঠাই নানা দিকে

নানা রিরংসাঘন শহরের ঠিকানায়

অসংখ্য বনঘুঘু আর পায়রার লাশ মাড়িয়ে
আমাকে পৌঁছাতে হয় তোমার উঁচু প্রাকারঘেরা শহরে

সেখানে ঝাঁ-ঝাঁ রোদের ভেতরেও
করমর্দনের উষ্ণতাগুলি হয়ে আছে
ঠাণ্ডা-হিম ঘুমন্ত কামান

আর, প্রেম সেখানে ছেঁড়া ও পুরনো তাঁবুর ভেতরে
মৃত্যুর তরঙ্গ-বেষ্টিত

দূর,ধস্ত, মলিন, কাতর মফস্বলে আমি থাকি!
রাত্রির অসংখ্য মরানদী উজিয়ে ভাবি:
স্মৃতি-ভস্মের ধূ-ধূ প্রান্তর পেরিয়ে
বিপুল দামামাসহ আমি আবার
এক শীত থেকে অন্য শীতে
তোমার ক্রূর সৈন্যদলের পেছনে দৌড়াবো
-----------------------------------------

The Tigress And The Night


The tigress keeps calling me in this full-moon night.



I beg her, ‘Have mercy. Don't devour me, please! ,
For I am a poor creature, too tiny to eat.'


The tigress felt some pity, grabbed me in her claws.
After some thought--I don't know what--she fell asleep.

'This is my chance.'- I thought.
And I slipped from her grip to crawl out
Beyond the limits of her roars.
Then I sneaked into the forest’s edge,
Sneaked into one of slumber’s abandoned caves.


' Her teeth, claws and amorous scratches won't get me again.
Here I am safe'--I thought--‘ inside this hidden chamber of an womb.'


On my bruised thighs and groin frantically I rub
Bishalyakarani, the mythical healing herb.
And I hope her amorous attacks would end !
And I hope to get back myself, the unmolested.



But, alas! the tigress chases and runs after me in every dream
With glares of phosphorus in her indignant eyes.



Crossing the frontier-river with a giant single leap
From nowhere she appears before me,
Stands tall on her dreadful two hind legs
And puts me instantly on her lap;



Then slowly and steadily she kisses me,
Gets her claws and sharp canine teeth
Stuck into my throat and neck and lips.

Thus she roasts me in her fire as a night kebob.

At predawn hour under the the drunken moon
An ambulance rushes to get me to a hospital.


[ Translated by the poet from Bangla ]


।।রাত্রি ও বাঘিনী।।

বাঘিনী আমারে শুধু ডেকে চলে ভরা পূর্ণিমায়;

বারবার কাতর মিনতি করে আমি তারে বলি:
দয়া করো, আমাকে খেয়ো না, আমি
অসহায় অতি ছোটো জীব

বাঘিনী করুণা করে, আমাকে থাবায় পুরে কী ভেবে ঘুমিয়ে পড়ে।
এ-সুযোগে আমি তার মুঠো গ'লে নামি


বুকে হেঁটে-হেঁটে তার গর্জনের সীমানা পেরোই
সন্তর্পণে ঢুকি পড়ি বনপ্রান্তে, পরিত্যক্ত ঘুমের গুহায়


ভাবি, বাঁচা গেল! ভাবি, আমাকে পাবে না আর তার
দাঁত-নখ, অত্যধিক প্রেমের আঁচড়।
অবশেষে এ-গর্ভগৃহের ছায়ায় বসে ভাবি নিরাপদ!

থ্যাঁতলানো অণ্ড-শিশ্ন, কালশিটে ঊরু ও জঘন, আর,
এই দুটি রক্তমাখা ঠোঁটে বিশল্যকরণী ঘষে ফিরে পাবো
অনাঘ্রাত আমাকে আবার


আমাকে পাবে না আর বাঘিনীর অতিরিক্ত রতি-আক্রমণ!


কিন্তু হায়, প্রতিবারই স্বপ্নে বাঘিনী তবু পিছু নেয়;
তীব্র চোখে ফসফরাস জ্বেলে
এক লাফে সীমান্তের নদীটি পেরিয়ে
অতর্কিতে সামনে আসে;
ভয়ানক দু'পায়ে দাঁড়ায়, আর
দু'বাহু বাড়িয়ে তার সে আমাকে কোলে তুলে নেয়;


ধীরে ধীরে চুমু খায়, ঠোঁটে ও গলায় তার দাঁত-নখ গেঁথে রক্ত চাটে
বেপরোয়া জ্বালামুখে আমাকে পুড়িয়ে শুধু কাবাব বানায়


শেষ রাতে মাতাল চাঁদের নিচে অ্যাম্বুলেন্স এসে
আমাকে উদ্ধার করে দ্রুত কোনো হাসপাতালে ছোটে

------------------------------------------------------------ --------


Beetoshoke, Be Back!

1.

Twilight glow has poured fire into the afternoon’s skull.
Eying the North Star, down the known-path on unwavering feet
Uttering some secret murmurs into his own ears
Beetoshoke---the poet-- is now off to the ‘farthest province of the west'

Meager is my own loss! Yet catastrophe! Yet fruits fall from the stalks.
Horrid waves do rage through many-a-sleep nights. The boat sinks!



2.

The old melancholy ripens as fruits on the vines.
Fearing thieves covering them under dry hay with love and care
He kept his vigil throughout the night.


3.

With everyday's sorrows, wants, pain and agonies
Perhaps he longed to mix a little blood of the Spring.
So that the blue butterfly comes flying to him
To beg a little wine.
And the tiny restless fly keeps on flying.
He begs nothing but ripe grapes .



4.

Lonely and secretly he sat to sip from his drinking pot;
Took a big gulp like an infant who loves milk and breasts.
Thus he-- a damned selfish---filled the musk of a deer with ale!

‘In a dewy night and at mid day, everyone went to sleep,
After all that pain and grief,
He took it as a chance to vanish like camphor?



5.

To get his body cured suddenly he jumped from late Autumn's rostrum
On to the spreading wings of the Garuda -- the mythical bird-
And rode somewhere too far.
How far? He confided none.

Only a beyond the cure evening's seemingly endless path
Lies strewn all over with withered, yellow leaves.


Is this then the secret vicissitude of fate?
All your wine and dancing girls in vain?


6.

Beetoshok, where do you now live or stay?
In the East or somewhere in the eternal West?

Forgetting is but an impossibility. Even Lithe-Water is aglow in memory!
From among countless grapes silently you pick inside yourself
Healing fruits with emaciated gloomy fingers?


7.

A twilight glows inside the afternoon's skull. And the fire blazes and burns!
Please be back now! Be back on that very path
Where fallen leaves do raise clamors.
Be back for barley, a little starch and a wee-bit love.


8.
Are all your pains now gone and healed? Pains of a caged bird?
If so, do come sharp to this abandoned vineyard.
Filling up the eternal evening-path with leaves and murmurs.

[ Translated by the poet from Bangla ]



বীতশোক ফিরে এসো



বিকেলের করোটিতে সন্ধ্যারাগ ঢেলেছে আগুন;
জ্যোতিরথে চোখ রেখে চেনা পথ শান্ত পায়ে হেঁটে
নিজেকে শুনিয়ে কোনো গূঢ়কথা, গোপন মর্মর
বীতশোক, চলে গেছে। পশ্চিমের প্রত্যন্ত প্রদেশে।

আমার ‘সামান্য ক্ষতি'? বিপর্যয়! খসে পড়ে ফল!
বহুঘুম-রাত্রিব্যেপে অনৃত ঢেউয়েরা! তরী ডোবে!


২.
পুরাতন বিষণ্নতা, গোপনে যে আঙুরলতায়
ফল রূপে পেকে ওঠে, সারারাত তস্করের ভয়ে
শুষ্ক তৃণে ঢেকে তারে সযতনে দিয়েছে প্রহরা।



৩.
প্রত্যহের দুঃখ-দৈন্য-বেদনা ও ক্লেশে, হয়তো সে,
বসন্ত-রুধির এনে চেয়েছিল কিছুটা মেশাতে;
যেন নীল প্রজাপতি এসে তার কাছে চায় মদ;
অধীর মক্ষিকা শুধু দ্রাক্ষা মেগে উড়ে-উড়ে চলে।



৪.
সন্তর্পণে একা বসে পানপাত্রে দিল সে চুমুক;
লম্বা ঢোঁক গিলে নিয়ে স্তনলোভী শিশুর নিয়মে
আলগোছে মৃগনাভী ভরেছে উদকে স্বার্থপর! !


‘শিশির-চোঁয়ানো রাতে, মধ্যদিনে দহনের শেষে'
অন্যরা ঘুমিয়ে ছিলো? এ-সুযোগে হলো সে কর্পূর?


৫.
হেমন্তের মঞ্চ থেকে গরুড়ের ছড়ানো ডানায়
অতর্কিতে চড়ে বসে শরীর সারাতে গেছে দূরে।
কত দূরে? কাউকে বলেনি; শুধু উপশমহীন
অনন্ত গোধূলিপথ ছেয়ে আছে হলদে পাতায়!

এই তবে গূঢ়লেখ? বৃথা তব নর্তকী ও মদ?

৬.
বীতশোক, তুমি আছো! অনন্ত পশ্চিমে নাকি পূবে?
অসম্ভব ভুলে থাকা; লিথিজলও স্মৃতিসমুজ্জ্বল!
অফুরান দ্রাক্ষা থেকে অন্ধকার প্রশীর্ণ আঙুলে
নিজের ভিতরে, চুপে, শমদায়ী পেড়ে আনো ফল?


৭.
বিকেলের করোটিতে সন্ধ্যারাগ! জ্বলছে আগুন!
ফিরে এসো সেই পথে; ঝরাপাতা-মুখর সরণি
কিছুটা যবের মোহে, কিছু প্রেমে, শর্করার টানে।

৮.
উপশম হলো ব্যথা? পিঞ্জিরার ভেতরে পাখির?
দ্রুত তবে চলে এসো, পরিত্যক্ত আঙুরের বনে;
অনন্ত গোধূলিপথ ভরে দিয়ে পাতায়, মর্মরে।


---------------------------------------------